ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম | সুবিধা এবং অসুবিধা

বর্তমান সময়ের সকলেই ফেসবুক ব্যবহার করেন। আপনারা লক্ষ্য করে দেখতে পারবেন যে অনেকের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এর পোস্টের নিচে শেয়ার অপশন থাকে। আবার অনেকের পোস্টের নিচে এই শেয়ার অপশন থাকে না।

আপনি কি জানেন এর পেছনের প্রধান কারণ কি? না জানলে আজকের পোস্টের জেনে যাবেন। তার সাথে ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম জেনে যাবেন। এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করতে গিয়ে আমি ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার সুবিধা এবং অসুবিধা ও আপনাদের জানিয়ে দেবো।

যার কারনে একত আপনারা ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম জেনে যাবেন। অপরদিকে আপনার জন্য এটি চালু করা উচিত নাকি অনুচিত সেটিও বুঝে যাবেন। তো চলুন আমাদের বিস্তারিত আলোচনার দিকে অগ্রসর হওয়া যাক।

Read More : সহজভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে ফেসবুক আইডি বের করা শিখে নিন

Table of Contents

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু কেবলমাত্র তখনই চালু হবে যখন আপনার আইডি পাবলিক করা হবে। আপনার আইডি প্রোফাইল যদি লক করা থাকে। অথবা আপনার বয়স যদি ১৮ বছরের কম হয়ে থাকে তাহলে আপনি এই শেয়ার অপশন চালু করতে পারবেন না।

তাই শেয়ার অপশন চালু করার আগে আপনাকে দুটি কথা মনে রাখতে হবে, আপনার আইডি প্রোফাইল লক থাকলে আনলক করে দিন। আর অপরটি হচ্ছে আপনার বয়স অবশ্যই ১৮ বছর এর উর্ধ্বে হতে হবে। এখন নিচে দেওয়া কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করুন।

  1. সবার আগে নিজের মোবাইল দিয়ে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগইন করুন।
  2. এরপর নিজের আইডির মেনু সেকশনে যান। উপরে কর্নারে থ্রি ডট থাকবে সেখানে ক্লিক করে মেনু সেকশনে যেতে পারবেন।
  3. এরপর সেটিংস এ ক্লিক করুন।
  4. সেখান থেকে প্রোফাইল লকিং অপশন দেখতে হবে। যদি আপনার প্রোফাইল লক থাকে। তাহলে প্রোফাইল লকিং অপশনে গিয়ে আনলক করে দিন।
  5. এরপর তার নিচের অপশনে ক্লিক করুন। (How people can find you and contact you)
  6. সেখান থেকে কারা কারা আপনাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারবে এটিকে এভরিওয়ান করে দিন।
  7. তারপর আবার বেরিয়ে আসুন।
  8. এখন পোস্ট অপশনে ক্লিক করুন।
  9. সেখান থেকেও কারা কারা আপনার পোষ্ট দেখতে পারবে সেটিকে পাবলিক করে দিন।
  10. এরপর আবার বেরিয়ে আসুন।
  11. একইভাবে স্টোরিস, রিয়েলস এবং ফলোয়ার অপশনে গিয়ে সকল কিছু পাবলিক করে আসুন।
  12. এখন নিজের নিউজফিডে চলে আসুন।
  13. যেখান থেকে পোস্ট করতে হয় সেই অপশনে যান।
  14. সেখানে আপনার আইডির নিচে পাবলিক লেখা থাকলে দেখুন। যদি পাবলিক না থাকে তাহলে সেখানে ক্লিক করে পাবলিক অপশন বেছে নিন।
  15. এবার একটি পোস্ট করুন।
  16. দেখতে পারবেন যে আপনার পোষ্টের নিচে শেয়ার অপশন চালু হয়ে গেছে।
  17. এবার অন্য কোন আইডি থেকে আপনার এই আইডির প্রোফাইল ভিজিট করুন।
  18. সম্প্রতি করা পোষ্টের নিচে শেয়ার অপশন দেখা যাবে।
  19. আপনি এখন ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম জেনে গিয়েছেন। তার সাথে আপনার প্রোফাইলে এখন পাবলিক হয়ে গেছে। আর আপনার নতুন সকল পোস্টে এখন শেয়ার অপশন চালু হয়ে যাবে।
  20. নিচে ছবির মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে একের পর এক ধাপ বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে সেটি অনুসরণ করুন।

Read More : ফেসবুকে ফলোয়ার দেখার উপায় কি? কারা ফলো করেছে জেনে নিন

ধাপ-১ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ধাপ-২ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ধাপ-৩ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ধাপ-৪ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ধাপ-৫ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ধাপ-৬ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ধাপ-৭ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

ধাপ-৮ :

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার নিয়ম

Read More : কাস্টমাইজেশন কি? অনলাইনের ভাষায় কাস্টমাইজেশন এর উদাহরণ

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার সুবিধা

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার অনেকগুলো সুবিধা আছে। যার মধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য সুবিধাগুলো আপনাদের মাঝে উপস্থাপন করছি।

  1. আপনার পোস্ট বেশি বেশি শেয়ার হবে। যার মাধ্যমে পোস্ট ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।
  2. যে কেউই আপনার পোস্ট সার্চ করে পেতে পারবে।
  3. যারা আপনার ফ্রিয়ান্ডলিস্টে নয় তারাও আপনার পোস্ট দেখতে পারবে।
  4. ফলোয়ার বাড়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে।
  5. পোস্টার রিচ অনেক বেড়ে যাবে।

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার অসুবিধা

ফেসবুকে শেয়ার অপশন চালু করার অনেকগুলো সুবিধা থাকলেও এর অসুবিধার পরিমানও কম নেই। যার মধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য অসুবিধাগুলো আপনাদের মাঝে উপস্থাপন করছি।

  1. যে কেউই সহজে আপনার প্রোফাইলের সকল কিছু দেখে আসতে পারবে।
  2. আপনি কি পোস্ট করছেন সবাই জানতে পারবে।
  3. ব্যক্তিগতভাবে পোস্ট করা প্রোফাইল পিকচার ও ছবিগুলো যেকোনো ফেইসবুক ব্যবহারকারী দেখতে পারবে।
  4. আপনার আত্মীয়-স্বজনদের আনফ্রেন্ড করলেও তারা আপনার প্রোফাইল দেখতে পারবেন।
  5. যে কেউ আপনার পোস্টে কমেন্ট করে বিরক্ত ও করতে পারে।
  6. আপনি যদি মেয়ে হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এই অসুবিধার মাত্রা আরো বেশি হতে পারে।
  7. বিশেষ করে আপনার পোস্ট করা ছবিগুলোর কোনো প্রাইভেসি থাকবে না।

Read More : মোবাইল চার্জ হতে অনেক সময় লাগে? দ্রুত চার্জ দেয়ার উপায়

তাই আপনি উপরের সুবিধা এবং অসুবিধাগুলো ভালোভাবে পড়ে এবং বুঝে নিজের আইডি পাবলিক ও শেয়ার অপশন চালু করার কথা ভাববেন। কিন্তু আপনি যদি সেলিব্রিটি হতে চান বা ফেসবুকে ভাইরাল হতে চান। তখন তো শেয়ার অপশন চালু করতেই হবে।

Leave a Comment