বাংলাদেশে ভিভো Y20 দাম কত । এর RAM & ROM সম্পূর্ণ রিভিউসহ

আজকে আলোচনা করব ভিভো ব্র্যান্ডের একটি মোবাইল নিয়ে। মোবাইলটি অত্যন্ত সুন্দর এবং চমৎকার। বাংলাদেশে ভিভো Y20 দাম কত এটি আজকের আলোচনায় আপনারা জানতে পারবেন। আমাদের বাংলাদেশের মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা অনেক।

প্রতিনিয়ত বাংলাদেশের মোবাইল বাজারে নতুন নতুন মোবাইল লঞ্চ করা হয়। আর এসব মোবাইল তৈরিতে অনেকগুলো স্বনামধন্য কোম্পানি রয়েছে। যাদের মধ্যে একটি কোম্পানি হচ্ছে vivo। আমরা সকলেই জানি ভিভো তাদের ক্যামেরার জন্য অত্যন্ত বিখ্যাত।

তেমনি তাদের মোবাইলের ডিজাইন ও সেপগুলো হয় অত্যন্ত নিখুঁত এবং সুন্দর। আর ভিভো Y20 এমনই একটি মোবাইল। তো চলুন কেননা আমরা ভিভো Y20 দাম এবং এর স্পেসিফিকেশন সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

Read More : বাংলাদেশে Vivo Y21 এর দাম | বিবু Y21 এর RAM & ROM রিভিউসহ

Table of Contents

বাংলাদেশে ভিভো Y20 দাম কত?

ভিভো Y20 মোবাইল দিয়ে vivo ব্র্যান্ডের একটি মোবাইল। যেটি ২০২০ সালের ২৮ আগস্ট মার্কেটে রিলিজ করা হয়। এই মোবাইলের মধ্যে আপনি 2G, 3G এবং 4G কানেক্টিভিটি পেয়ে যাবেন। সাথে যদি কথা বলি এর আকৃতি সম্পর্কে তাহলে এটি একটি স্লিম ফোন।

যার মধ্যে সামনের দিকে একটি সেলফি ক্যামেরা অত্যন্ত নিখুঁতভাবে প্লেস করা আছে। ফোনের মধ্যে আপনি ডুয়াল সিম ব্যবহার করতে পারবেন। বাংলাদেশের মার্কেটে এই ফোনের চাহিদা অনেক। আর যদি কথা বলি ভিভো Y20 মোবাইলের দাম সম্পর্কে।

বাংলাদেশের বাজারে এই ভিভো Y20 মোবাইলের অফিশিয়াল দাম হচ্ছে – ১৪,০০০/- টাকা। তবে বিভিন্ন উৎসব ও পরব অনুযায়ী এর মধ্যে ডিসকাউন্ট দেওয়া হয়।

আপনি যদি কোন উৎসবের সময় মোবাইলটি কিনেন যেমন ঈদ কিংবা বড় ঈদ। তাহলে হয়তো মোবাইলের অফিশিয়াল শোরুম থেকে আপনাকে কিছুটা ডিসকাউন্ট দেওয়া হবে। এটি ফিক্সট নয় তবে অনেক সময় ডিসকাউন্ট দিতে দেখা যায়।

ভিভো Y20 মোবাইলের সম্পূর্ণ স্পেসিফিকেশন এবং গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

  • রং : সর্বপ্রথম কথা বলব মোবাইলটির রং নিয়ে। এ মোবাইলের রং হচ্ছে কালো এবং সাদা। তবে পিছনের দিকে কিছু প্রিন্টেড থ্রিডি ডিজাইন দেখা যাবে।
  • RAM & ROM : ভিভো Y20 মোবাইলে ৪ জিবি এবং ৬৪ জিবি আছে।
  • স্ক্রিন এবং সাইজ : মোবাইলটির স্ক্রিন গ্লাসের তৈরি। আর এটি প্লাস্টিক বডির একটি মোবাইল। যার ডিসপ্লের সাইজ ৬.৫১ ইঞ্চি
  • রেজুলেশন : যদি কথা বলি এর রেজুলেশন নিয়ে। এটি এইচডি প্লাস 720 x 1600 পিক্সেলস (২৭০ পিপিআই) রেজুলেশন সম্পন্ন একটি ফোন।
  • টাচ এবং ওজন : মোবাইলটি একটি মাল্টি টাচ মোবাইল। মোবাইলটির নেট ওজন ১৯২.৩ গ্রাম। তেমন একটা ভারী নয় এবং হাতের মধ্যে ভালোভাবেই হোল্ড করতে পারবেন।
  • ব্যাটারি : ভিভো Y20 মোবাইলে লিথিয়াম পলিমারের ৫০০০mAh ব্যাটারি সংযোগ আছে। সাথে আপনাকে ১৮ ওয়াটের একটি চার্জার দেয়া হবে। যেটি এই ব্যাটারিকে দ্রুত চার্জ করতে সক্ষম।
  • পারফরম্যান্স : ভিভো Y20 মোবাইলের পারফরম্যান্স মোটামোটি অনেক ভালো। মোবাইলটিতে অপারেটিং সিস্টেম এন্ড্রোইড ১০ ভার্সন রয়েছে। সাথে কোয়ালকম স্নাপড্রাগন ৪৬০ এর একটি চিপসেট এবং এডরেনো ৬১০ জিপিইউ আছে।
  • সিকিউরিটি সেন্সরস : সিকিউরিটি সেন্সর হিসেবে রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। সাথে ফেস আনলক সিস্টেমও আছে।

Read More : ভিভো 4 64 দাম কত ২০২৪? ২০ টি ভিভো মোবাইলের দামের তালিকা

এখন কথা বলবো মোবাইলটির ক্যামেরা সম্বন্ধে –

পিছনের ক্যামেরা :

ক্যামেরা ত্রিপল ক্যামেরা
রেজুলেশন 13+2+2 Megapixels
ভিডিও কোয়ালিটি সম্পূর্ণ HD 1080p

সামনের ক্যামেরা :

ক্যামেরা সিঙ্গেল ক্যামেরা
রেজুলেশন 8 Megapixels
ভিডিও কোয়ালিটি সম্পূর্ণ HD 1080p

ভিভো Y20 মোবাইলের রিভিউ

ভিভো y20 মধ্যম বাজেটের মধ্যে একটি ভালো ফোন। আজকাল আমরা নিজের ফোন কেনার জন্য সর্বোচ্চ বাজেট ১৫ হাজার ধরে রাখি। অপরদিকে vivo y20 মোবাইলটির দাম মাত্র ১৪ হাজার টাকা। তার মধ্যে অনেক সময় ভিভো কোম্পানির ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকে।

অতঃপর বলা যায় কেউ যদি একটি মাধ্যম বাজেটের মধ্যে নতুন মোবাইল নিতে চায় তাহলে সে ভিভো y20 নিতে পারে। এরপর আমরা যদি এর RAM এবং ROM এর দিকে লক্ষ্য করি তাহলে এটি আপনাকে সুন্দর একটি 4GB RAM 64GB ROM প্রোভাইড করে থাকে।

এর চিপসেট, প্রসেসর ও জিপিউ মোটামুটি ভালো। তাছাড়াও এর পিছনের ক্যামেরা ভালো পারফরমেন্স দিয়ে থাকে। আগেই বলেছি ভিভো কোম্পানির মোবাইল গুলো তাদের ক্যামেরার জন্য অত্যন্ত বিখ্যাত।

আর আপনি যদি ভিডিও রেকর্ডিং করতে চান তাহলে এটি আপনাকে এইচডি কোয়ালিটিতে ভিডিও রেকর্ড করে দেয়। মোবাইলটির ডিজাইন অনেক নিখুঁত এবং সুন্দর যা বর্তমান যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারে।

বর্তমান সময়ে মানুষ মোবাইলের পারফরমেন্সের চেয়ে এর বাইরের ডিজাইন বেশি দেখে। বিশেষ করে vivo Y20 মোবাইলের পিছনের দিকে প্রিন্টেড কিছু থ্রিডি ডিজাইনগুলো আপনার মোবাইলকে অনেক সৌন্দর্যপূর্ণ করে তোলে।

যারা বেশি দামি মোবাইল ব্যবহার করতে চান না। কম দামের মধ্যে একটি ভালো পারফরমেন্স ও ভালো ডিজাইনের মোবাইল নিতে চান তাদের জন্য এই মোবাইলটি যথেষ্ট ভালো।

Read More : 12 হাজার টাকার মোবাইল vivo | সেরা ৪টি vivo সেটের তালিকা ২০২৪

Conclusion

আশা করি আপনারা জেনে গিয়েছেন ভিভো Y20 দাম কত। তাছাড়া আরো আশা করা যায় আমার আলোচনা করা মোবাইলের সম্পূর্ণ স্পেসিফিকেশন পড়ে মোবাইলটি সম্পর্কে যত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সেগুলো জেনে গিয়েছেন।

আমার আজকের এই কনটেন্টটি ভালো লাগলে অবশ্যই নিজে কমেন্ট করে জানাবেন। তাছাড়া আপনার বন্ধু-বান্ধব বা অন্যকেউ নতুন মোবাইল কিনতে চাইলে এ মোবাইলটি তার কাছে সাজেস্ট করতে পারেন।

vivo Y20 মোবাইলটির দাম মধ্যম এবং পারফরম্যান্স মোটামুটি অনেক ভালো। তাই আশা করি মোবাইলটি আপনার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। তার সাথে আমার এই পোস্টটিও আপনার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে।

Leave a Comment